মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০, ১০:১০ অপরাহ্ন
শিরোনাম
বগুড়া আদমদীঘিতে দূর্গাপূজা মন্ডপে নিরাপত্তা ও শান্তিশৃংখলা রক্ষায় আনসার ভিডিপির সদস্যরা বগুড়ায় সাবগ্রাম দুর্গা মন্দিরে যুবলীগ কর্মীকে কুপিয়ে হত্যা আশুলিয়ায় জাতীয় শ্রমিকলীগের জন্মদিন পালন আশুলিয়া প্রেসক্লাব চত্বরে ককটেল বিষ্ফোরন সাভার ও আশুলিয়ায় র‌্যাবের অভিযানে বিদেশী বিয়ার ও ট্যাপেন্টাডল ও অস্ত্র সহ ৬জন আটক দুই শিক্ষার্থীকে বেঁধে মারধর, শিক্ষক আটক চলমান মহামারিই শেষ নয়, ভবিষ্যতের জন্যেও বিশ্বকে প্রস্তুত থাকতে হবে : ডব্লিওএইচও দেশের বিভিন্ন রুটে কমিউটার, মেইল, এক্সপ্রেস এবং লোকাল ট্রেন পরিচালনার সিদ্ধান্ত দেশে করোনা সংক্রমণ কমেছে।। সরকার পরিবর্তন চাইলে বিএনপিকে নির্বাচন পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।।কাদের

বেলুনওয়ালার সিলিন্ডার বিস্ফোরণে ৬ শিশুর মর্মান্তিক মৃত্যু

  • সর্বশেষ আপডেট বুধবার, ৩০ অক্টোবর, ২০১৯, ৭.৩৫ পিএম
  • ৪০ বার পড়া হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ রাজধানীর রুপনগর আবাসিক এলাকায় গ্যাস বেলুনের সিলিন্ডার বিস্ফোরিত হয়ে ৬ শিশুর মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছে আরোও অন্তত ১৭ জন।

বুধবার বিকালে মনিপুর স্কুলের রূপনগর শাখার বিপরীত দিকে ১১ নম্বর সড়কে শিয়ালবাড়ি বস্তির পাশে এ বিস্ফোরণে ঘটনাস্থলেই পাঁচজনের মৃত্যু হয় বলে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস কর্মকর্তারা জানান।

পরে জাতীয় অর্থোপেডিক হাসপাতাল ও পুনর্বাসন প্রতিষ্ঠানে (পঙ্গু হাসপাতাল) নেওয়ার পর আহত আরেক শিশুর মৃত্যু হয় বলে রূপনগর থানার পরিদর্শক (অপারেশন) মোকাম্মেল হক জানান।

নিহতদের মধ্যে পাঁচ শিশুর নাম জানা গেছে। তারা হল- রমজান (১১), নুপুর (১০), রুবেল (১২), ফারজানা (৭), রিয়া (৭)।

এরা সবাই শিয়ালবাড়ি বস্তিতে থাকত। তবে তাদের বিস্তারিত পরিচয় জানাতে পারেনি পুলিশ।

এ ঘটনায় আহত শিশুরা ঢাকার কয়েকটি হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন। তাদের মধ্যে চারজনের অবস্থা গুরুতর বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন।

প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে পরিদর্শক মোকাম্মেল বলেন, ভ্যানে করে গ্যাস সিলিন্ডার নিয়ে বেলুন ফুলিয়ে বিক্রি করছিলেন একজন বিক্রেতা।

“পাশেই বস্তি এলাকা হওয়ায় অনেকেই ভ্যান ঘিরে এবং আশপাশে দাঁড়িয়ে ছিল। কেউবা বেলুন কিনছিল। এ সময় হঠাৎ করে বিস্ফোরণ ঘটে।”

এ ঘটনায় বেলুন বিক্রেতা আবু সাঈদকে পঙ্গু হাসপাতাল থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে পুলিশের মিরপুর বিভাগের উপ-কমিশনার মোস্তাক আহমেদ জানিয়েছেন।

বিস্ফোরণে আহত মো. সোহেল (২৫) নামে একজন রিকশাচালক বলেন, কাছেই একটি ইলেক্ট্রিক দোকানের পাশে দাঁড়িয়েছিলেন।

“আমি দেখছি পাশে একজন বেলুনওয়ালা তার গ্যাস সিলিন্ডারের গ্যাস শেষ হওয়ার পর আবার গ্যাস তৈরি করছিল। তখন একজনকে বলতে শুনেছি, এভাবে গ্যাস তৈরি করলে বিস্ফোরণ হবে। তার কিছুক্ষণ পরই বিস্ফোরণ হয়।”

খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের তিনটি ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে উদ্ধার কাজ শুরু করে জানিয়ে জ্যেষ্ঠ স্টেশন অফিসার আনোয়ার হোসেন বলেন, বিস্ফোরণে নারী ও শিশুদের ক্ষত-বিক্ষত দেহ পড়ে ছিল। নিহতদের প্রায় সবার নাড়ি-ভুড়ি বেরিয়ে গেছে।

“এক নারীর হাত উড়ে গেছে। প্রথমে আমরা ভেবেছিলাম উনি মারা গেছেন। পরে দেখি বেঁচে আছেন। এখন ঢাকা মেডিকেলে চিকিৎসাধীন আছেন।”

আহতদের মধ্যে ১৬ জনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। তাদের মধ্যে পাঁচজন ভর্তি আছেন। পাঁচজনের মধ্যে চারজনের অবস্থাই সংকটাপন্ন। অজ্ঞাত এক শিশুর অবস্থা ‘খুবই খারাপ’।  বাকিদের প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে বলে ঢাকা মেডিকেলের আবাসিক সার্জন মো. আলাউদ্দিন জানিয়েছেন। এছাড়া একজন সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে এবং একজন মিরপুরের ডেন্টাল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকার তথ্য পাওয়া গেছে।

সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালের উপ-পরিচালক মামুন মোর্শেদ জানান, ঘটনার পর পাঁচ শিশুর মরদেহ তাদের এখানে আনা হয়। আহত চার-পাঁচজনকে আনা হয়েছিল। তাদের মধ্যে একজন ছাড়া বাকিদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়ে দেওয়া হয়।

ময়নাতদন্ত শেষে বৃহস্পতিবার লাশগুলো স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হবে বলে পুলিশ কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

আপনার মতামত দিন:

শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরির আরও সংবাদ
themebaalokitokant1852550985
©2019-20 All rights reserved Alokitokantho