বুধবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২:৫৭ অপরাহ্ন
শিরোনাম
আশুলিয়া প্রেসক্লাব চত্বরে ককটেল বিষ্ফোরন সাভার ও আশুলিয়ায় র‌্যাবের অভিযানে বিদেশী বিয়ার ও ট্যাপেন্টাডল ও অস্ত্র সহ ৬জন আটক দুই শিক্ষার্থীকে বেঁধে মারধর, শিক্ষক আটক চলমান মহামারিই শেষ নয়, ভবিষ্যতের জন্যেও বিশ্বকে প্রস্তুত থাকতে হবে : ডব্লিওএইচও দেশের বিভিন্ন রুটে কমিউটার, মেইল, এক্সপ্রেস এবং লোকাল ট্রেন পরিচালনার সিদ্ধান্ত দেশে করোনা সংক্রমণ কমেছে।। সরকার পরিবর্তন চাইলে বিএনপিকে নির্বাচন পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।।কাদের জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলায় প্রতিশ্রুত চাঁদার পরিমাণ বাড়াতে হবে : প্রধানমন্ত্রী চাঁপাইনবাবগঞ্জে আন্তর্জাতিক সাক্ষরতা দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা আজ জিসিএ’র আঞ্চলিক কার্যালয়ের উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী

দক্ষিণ ঢাকার উন্নয়নে বিশ্বব্যাংক দিচ্ছে৮৪৩ কোটি টাকা

  • সর্বশেষ আপডেট বুধবার, ২৯ মে, ২০১৯, ৪.২২ পিএম
  • ২৩ বার পড়া হয়েছে

নিউজ ডেস্ক: আধুনিকায়নের মাধ্যমে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন এলাকাকে বাসযোগ্য করে তুলতে ১০ কোটি পাঁচ লাখ ডলার অর্থাৎ বাংলাদেশি মুদ্রায় ৮৩৪ কোটি ৪৯ লাখ টাকা ঋণ দিচ্ছে বিশ^ব্যাংক। সংস্থাটির আন্তর্জাতিক উন্নয়ন সংস্থার (আইডিএ) তহবিল থেকে দেওয়া এই অর্থ পরিশোধে পাঁচ বছরের রেয়াত পাওয়া যাবে। ৩০ বছরে মোট দুই শতাংশ সুদে পরিশোধ করতে হবে এই অর্থ।

বুধবার এ বিষয়ে অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগ (ইআরডি) ও বিশ্বব্যাংকের মধ্যে একটি চুক্তি হয়েছে।

রাজধানীর শেরে বাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে সরকারের পক্ষে ইআরডি অতিরিক্ত সচিব মো. জাহিদুল হক ও বিশ্ব ব্যাংকের পক্ষে ভারপ্রাপ্ত আবাসিক প্রতিনিধি জাহিদ হোসেন চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন।

চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে জানানো হয়, ‘ঢাকা সিটি নেইবারহুড আপগ্রেডিং প্রজেক্ট’ শীর্ষক একটি প্রকল্পের মাধ্যমে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন এলাকার আধুনিকায়ন করা হবে। প্রকল্পটির মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ৮৮০ কোটি ৪৬ লাখ টাকা। এর মধ্যে বিশ্বব্যাংক এককভাবে ৮৩৪ কোটি টাকা দিচ্ছে।

প্রকল্পের আওতায় মূলত ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের কামরাঙ্গীরচর, লালবাগ, নয়বাজার, সূত্রাপুর, গুলিস্তান, খিলগাঁও, মুগদা ও বাসাবোসহ সংশ্লিষ্ট এলাকাগুলোতে জনসাধারণের ব্যবহারযোগ্য জায়গা বাড়ানো এবং নগর সেবা উন্নয়ন করা হবে। এছাড়াও উম্মুক্ত স্থান বাড়ানো, নগরবাসীর জীবনমান বৃদ্ধি করে আর্থ-সামাজিক অবস্থার উন্নয়ন এ প্রকল্পের অন্যতম প্রধান উদ্দেশ্য।

জাহিদ হোসেন বলেন, ‘বাংলাদেশের মোট উৎপাদনশীলতার দিক দিয়ে ঢাকা অনেক গুরুত্বপূর্ণ। এ প্রকল্পের মাধ্যমে বিশেষ করে সমন্বিত সড়ক নেটওয়ার্ক তৈরির পাশাপাশি খেলাধুলার মাঠ ও খালি জায়গা তৈরি করে সাধারণ মানুষের জন্য স্বস্তির পরিবেশ তৈরি এ প্রকল্পের অন্যতম প্রধান উদ্দেশ্য।’

আপনার মতামত দিন:

শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরির আরও সংবাদ
themebaalokitokant1852550985
©2019-20 All rights reserved Alokitokantho